রোজা ভঙ্গের কারণ কি কি

রোজা পবিত্র রমজানের গুরুত্বপূর্ণ ফরজ বিধান। তাই এটি আমাদের সতর্কতা ভাবে পালন করতে হবে। এ জন্য আমাদের জানতে হবে কি কাজ করলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যায়।

Mar 8, 2024 - 12:06
Apr 14, 2024 - 07:45
 0  26
রোজা ভঙ্গের কারণ কি কি

প্রিয় দ্বীনি ভাই ও বোনেরা রোজা ভঙ্গের কারণ অনেক কিছুই আছে তার মধ্যে  আজকে আমরা সাতটি বিষয় নিয়ে কথা বলব। ইনশাআল্লাহ্ বাকি যত কারণ গুলো আছে আমরা সেগুলো অনুসন্ধান করব।

1.কোন প্রকার আহার গ্রহণ করলে বা খাদ্য গ্রহণ করলে কিছু খেলে আমাদের রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে।

2. কোন কিছু পান করলে। এটি যে কোন পান হতে পারে; পানি বা ধুমপান যেকোনো কিছু হতে পারে। সকল প্রকার পান ও পানীয় রোজাদার ব্যক্তি কোনভাবেই গ্রহণ করতে পারবে না এটি নিষিদ্ধ, যদি করেন তাহলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। 

3. রোজা রেখে স্ত্রী সহবাস  করা যাবে না । 

4. রোজা রেখে ইচ্ছাকৃত বীর্যপাত করলে। এটি হস্তমৈথুন করা দ্বারা হতে পারে বা কেউ বাজে চিন্তা করতে করতে ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত করলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। 

ওপরে চারটি বিষয় আমরা জানতে পেরেছি সূরা বাকারার ১৮৭ থেকে। 

اُحِلَّ لَکُمۡ لَیۡلَۃَ الصِّیَامِ الرَّفَثُ اِلٰی نِسَآئِکُمۡ ؕ ہُنَّ لِبَاسٌ لَّکُمۡ وَاَنۡتُمۡ لِبَاسٌ لَّہُنَّ ؕ عَلِمَ اللّٰہُ اَنَّکُمۡ کُنۡتُمۡ تَخۡتَانُوۡنَ اَنۡفُسَکُمۡ فَتَابَ عَلَیۡکُمۡ وَعَفَا عَنۡکُمۡ ۚ فَالۡـٰٔنَ بَاشِرُوۡہُنَّ وَابۡتَغُوۡا مَا کَتَبَ اللّٰہُ لَکُمۡ ۪ وَکُلُوۡا وَاشۡرَبُوۡا حَتّٰی یَتَبَیَّنَ لَکُمُ الۡخَیۡطُ الۡاَبۡیَضُ مِنَ الۡخَیۡطِ الۡاَسۡوَدِ مِنَ الۡفَجۡرِ ۪ ثُمَّ اَتِمُّوا الصِّیَامَ اِلَی الَّیۡلِ ۚ وَلَا تُبَاشِرُوۡہُنَّ وَاَنۡتُمۡ عٰکِفُوۡنَ ۙ فِی الۡمَسٰجِدِ ؕ تِلۡکَ حُدُوۡدُ اللّٰہِ فَلَا تَقۡرَبُوۡہَا ؕ کَذٰلِکَ یُبَیِّنُ اللّٰہُ اٰیٰتِہٖ لِلنَّاسِ لَعَلَّہُمۡ یَتَّقُوۡنَ 

রোযার রাতে তোমাদের জন্য হালাল করে দেওয়া হয়েছে তোমাদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস। তারা তোমাদের জন্য পোশাক এবং তোমরাও তাদের জন্য পোশাক। আল্লাহ জানতেন, তোমরা নিজেদের সাথে খেয়ানত করছিলে। অতঃপর তিনি তোমাদের প্রতি দয়াপরবশ হয়েছেন এবং তোমাদের ত্রুটি ক্ষমা করেছেন। ১৩২ সুতরাং এখন তোমরা তাদের সাথে সহবাস কর এবং আল্লাহ তোমাদের জন্য যা-কিছু লিখে রেখেছেন তা সন্ধান কর। ১৩৩ আর যতক্ষণ না ভোরের সাদা রেখা কালো রেখা থেকে পৃথক হয়ে যায়, ততক্ষণ পর্যন্ত তোমরা খাও ও পান কর। তারপর রাতের আগমন পর্যন্ত রোযা পূর্ণ কর। আর তাদের সাথে (স্ত্রীদের  সাথে)  সহবাস  করো না, যখন তোমরা মসজিদে ইতিকাফরত থাক। এসব আল্লাহর (নির্ধারিত) সীমা। সুতরাং তোমরা এগুলোর নিকটে যেও না। এভাবে আল্লাহ মানুষের সামনে স্বীয় নিদর্শনাবলী স্পষ্টরূপে বর্ণনা করেন, যাতে তারা তাকওয়া অবলম্বন করে।

বর্ণনায়ঃ মুফতী তাকী উসমানী 

5. কেউ যদি ভোররাতে যখন ফজরের আযানের ওয়াক্ত হয়ে গেছে, কিন্তু তিনি মনে করছেন এখনো সাহরি খাওয়ার সময় রয়ে গেছে এই কথা মনে করে তিনি খাচ্ছেন, কিন্তু পরবর্তীতে দেখলেন খেতে খেতে তিনি এত দেরি করে ফেলেছেন যে তিনি সূর্য ফজর ওয়াক্ত যখন হয়েছে তখন তিনি খাবার গ্রহণ করে ফেলেছেন এটা যদি তিনি পরবর্তীতে জানতে পারেন তাহলে সে তার এ রোজাটি হয়নি। এ রোজাটি তার আবার পুনরায় রাখতে হবে। তার রোজা ভঙ্গ হয়ে গেছে। 

6. ইচ্ছাকৃতভাবে বমি করা। 

7. মেয়েদের মাসিক ও সন্তান প্রসবের পর ঋতুস্রাব। 

আল্লাহ ভালো জানেন

What's Your Reaction?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow